মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

নয়াবাদ মিএবাটি উচ্চ বিদ্যালয়

  • সংক্ষিপ্ত বর্ণনা
  • প্রতিষ্ঠাকাল
  • ইতিহাস
  • প্রধান শিক্ষক/ অধ্যক্ষ
  • অন্যান্য শিক্ষকদের তালিকা
  • ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা (শ্রেণীভিত্তিক)
  • পাশের হার
  • বর্তমান পরিচালনা কমিটির তথ্য
  • বিগত ৫ বছরের সমাপনী/পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল
  • শিক্ষাবৃত্ত তথ্যসমুহ
  • অর্জন
  • ভবিষৎ পরিকল্পনা
  • ফটোগ্যালারী
  • যোগাযোগ
  • মেধাবী ছাত্রবৃন্দ

বিদ্যালয়টি কাহারোল উপজেলা হইতে ১০ কিলোমিটার পূর্বে ৬নং রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নে।এখানকার লোক জন অত্যমত্ম গরীব, দিন মুজুর, হিন্দু,মুসলিম,খ্রিষ্ঠান সহ অন্যান্য সম্প্রদায়ের লোকজন অএ এলাকায় বসবাস করে।অএ এলাকার শিক্ষা বঞ্চিত ছেলে মেয়েরা জাতে নিবিঘ্নে লেখাপড়া চালিয়ে যেতে পারে। সে জন্য এখানকার জনসাধারণ শিক্ষা কে প্রসারিত করার জন্র ১৯৯৪ইং সালে নয়াবাদ মৌজায় নয়াবাদ মিএবাটি প্রতিষ্ঠিত করে।

০১/০১/১৯৯৪ইং।

নয়াবাদ গ্রামে অতিতে সম্ভামত্ম পরিবারের মানুষ বসবাস করেছিল এখানকার মানুষেরা বেশির ভাগেই ছিল অশিক্ষিত ও মূক্ষ। তারা মনে করেছিল আমাদেও ভবিষ্যতে ছেলে মেয়েদের শিক্ষার মান উন্নয়নের জন্য একটি বিদ্যালযের প্রয়োজন। তাই তারা নয়াবাদ মিএবাটি উচ্চ বিদ্যালয় গঠনের আলোচনায় বসে এবং তাদের সহযোগীতায় অএ বিদ্যালয়টি গড়ে উঠেছিল।

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল
মানিক চন্দ্র রায় ০১৭৩৩১৫৮৯৪৮ Litukumar.56@gmail.com

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল

শ্রেনী

ছাত্র/ছাত্রীর সংখ্যা

৬ষ্ঠ শ্রেনী                       

৮৫  জন

সপ্তম শ্রেনী

৪০  জন

অষ্টম শ্রেনী

৬০  জন

নবম শ্রেণী

২৪ জন

দশম শ্রেণী

১২  জন

৫৬.১৫%

ক্রসিক নং

নাম

পদবী

০১

যোগেন্দ্র নাথ রায়

সভাপতি

০২

বছির উদ্দীন

অভিভাবক সদস্য

০৩

শংকর

অভিভাবক সদস্য

০৪

উপেন চন্দ্র রায়

অভিভাবক সদস্য

০৫

চঞ্জলা রানী রায়

সংরক্ষিত সদস্যা

০৬

দিলীপ কুমার বর্ম্মা

শিক্ষক প্রতিনিধি

০৭

চন্দন কুমার রায়

শিক্ষক প্রতিনিধি

০৮

পারভীন আক্তার

শিক্ষক প্রতিনিধি

০৯

মানিক চন্দ্র রায়

প্রধাধিকার বলে

সাল

মোট ছাত্র/ছাত্রী

মোট পাস

শতকরা হার

২০০৭

১৬

১২

৭৫%

২০০৮

১৬

১১

৬৯.৫৯%

২০০৯

৩৩

১৯

৫৭.৫৭%

২০১০

২৩

১৬

৬৯.৫৬%

২০১১

৩০

২৭

৯০%

৬ষ্ঠ শ্রেণী

৭ম শ্রেণী

৮ম শ্রেণী

৯ম শ্রেণী

১০ম শ্রেণী

মোট

২৩

৩৭

১৩

০৩

১০

৮৪

বিদ্যালয়টি ১৯৯৪ ইং সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার সময় ছাত্র/ছাত্রীর সংখ্যা ছিল অত্যমত্ম কম। বর্তমানে দক্ষ শিক্ষক, পরিচালনা কমিটি ও স্থানীয় জন সাধারণের সহযোগীতায় ছাত্র/ছাত্রীর সংখ্যা বৃদ্ধি সহ প্রতি বছর পাবলিক পরিক্ষার ফলাফল সমেত্মাষজনক পর্যায়ে উন্নিত করা সম্ভব হয়।

অদ্যাবধি সরকার কর্তক কোন একাডেমীক ভবন পাওয়া যায় নাই।তাছাড়া বিদ্যালয়ের চারিদিকে কোন সীমা প্রাচার নাই। পর্যায়ক্রমে যদি উক্ত ভৌত অবকাঠামো সমূহ পাওয়া গেলে ছাত্র/ছাত্রীর সংখ্যা আরো বৃদ্ধি, পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল ১০০% উন্নিত সহ ছাত্র/ছাত্রীদেও আবাসিক হোসটেল চালু করার পরিকল্পনা রহিয়াছে।